1. admin@aloketosatkhira.com : admin :
  2. arafat.moutola@gmail.com : arafat : aloketo satkhira arafat
  3. bablu.press14@gmail.com : bablu : aloketo satkhira bablu
  4. hasanalibacchu2014@gmail.com : bacchu : Aloketo satkhira bacchu
  5. mdfysal852@gmail.com : faysal :
  6. hudamali019@gmail.com : huda : aloketosatkhira news admin huda
  7. kamrulpress@gmail.com : kamrul : aloketo satkhira kamrur
  8. kdpress21@gmail.com : aloketo satkhira : aloketo satkhira
  9. leto.debhata@gmail.com : lito : Aloketo satkhira lito
  10. salem8720@gmail.com : salem : Aloketo satkhira salem
  11. sarowerhossain201@gmail.com : Sarower : Sarower
  12. masujoy77@gmail.com : sujoy : aloketo satkhira
  13. taposhg588@gmail.com : aloketo satkhira tapos : aloketo satkhira tapos
তদন্ত কর্মকর্তাই তদন্তের আওতায়! - আলোকিত সাতক্ষীরা
শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:০৮ পূর্বাহ্ন
বিশেষ:
তালা সদরে প্রহসনের নির্বাচন বাতিলের দাবি আবারও মেম্বর হলেন শীর্ষ চোরাকারবারী কেঁড়াগাছী ইয়ার আলী কলারোয়ায় নির্বাচনে হেরে রাস্তা আটকে দিলেন মেম্বর প্রার্থী! তালায় সরদার জাকিরের নেতৃত্বে প্রতিমা ভাংচুর, আহত হলেন ইজিবাইক চালক সাতক্ষীরায় নাশকতার প্রস্তুতিকালে ১০ নারী জামায়াত কর্মীকে আটক তালা সদরে ভোটের মাঠে বাশেঁর লাঠি ও দেশীয় অস্ত্রের মহড়া ঝুঁকিপূর্ণ কলারোয়ার কেঁড়াগাছি ইউপি নির্বাচনে বিট পুলিশের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ দেবহাটায় নিয়মিত অফিস করেননা বিভিন্ন দপ্তরের অফিসাররা, দূর্ভোগে সাধারণ মানুষ! নির্বাচন নিয়ে ভুট্টোলাল এর অপরাজনীতির কারণে  কলারোয়ার কেঁড়াগাছি ইউপি ঝুঁকিপূণ শেখ হাসিনার গাড়িবহরে হামলার মামলায় কারাদন্ডপ্রাপ্ত ৬ আসামীর আপিল নামঞ্জুর
সর্বশেষ:
তালা সদরে প্রহসনের নির্বাচন বাতিলের দাবি সাতক্ষীরা জেলা ছাত্রলীগ কার্যালয়ে নতুন সাইনবোর্ড স্থাপন দেবহাটার পারুলিয়ায় নারীদের অধিকার ও নারীদের সমতা বিবাহের প্রতিশ্রুতিতে একাধিক নারীর সাথে সম্পর্ক: প্রতারক মেসবাউল কারাগারে খানবাহাদুর আহছানউল্লা’র মাজার জিয়ারতের মধ্য দিয়ে সাহেব আলীর নির্বাচনী প্রচারণা শুরু পানির নিচে সাতক্ষীরা সদর উপজেলা পরিষদ: ভোগান্তিতে জনসাধারণ আবারও মেম্বর হলেন শীর্ষ চোরাকারবারী কেঁড়াগাছী ইয়ার আলী ভোগান্তির আরেক নাম মৌতলা বাজার সড়ক কলারোয়ায় নির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যানসহ সদস্যদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছে কলারোয়া প্রেসক্লাব খলিশাখালি সহস্রাধিক বিঘা জমি দখলের ঘটনায় সরেজমিনে মামলার তদন্তে পিবিআই

তদন্ত কর্মকর্তাই তদন্তের আওতায়!

  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ৮ আগস্ট, ২০২১
  • ১৪৮ দেখেছেন

৩০তম বিসিএসে পুলিশ ক্যাডারে প্রথম হয়েছিলেন। চাকরিতে যোগ দেয়ার পর পুলিশ একাডেমিতে বুনিয়াদি প্রশিক্ষণেও হয়েছিলেন সেরা। পান বেস্ট প্রবিশনারি অ্যাওয়ার্ড, বেস্ট একাডেমিক এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড। পেশাগত দক্ষতা বাড়িয়ে নিতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে মাস্টার্স অব পুলিশ সায়েন্সেও হয়েছিলেন প্রথম। বলছি, সদ্য অপসারিত ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) এডিসি গোলাম সাকলায়েনের কথা।

সাকলায়েন কর্মজীবনেও প্রতিনিয়ত রেখেছেন যোগ্যতার স্বাক্ষর। রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর হাত থেকেও গ্রহণ করেছেন পদক। ৩০তম বিসিএসের কার্যক্রম যখন চলে তখন বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন ব্যাংকের পরীক্ষায় প্রথম হন সাকলায়েন। একই সঙ্গে পরীক্ষা দিয়ে সহকারী উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা হিসেবেও টিকে যান, যোগ দেন সেই চাকরিতেই। পোস্টিং হয় চাঁপাইনবাবগঞ্জে।

জানা যায়, এইচএসসির পর সামরিক বাহিনীতে কমিশন পদে আবেদন করেন। সেখানে সব পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে মিলিটারি অ্যাকাডেমিতে যোগ দেন ৫৯ লং কোর্সে। তবে এখান থেকে মা-ই তাকে ফিরিয়ে নিয়ে আসেন। জীবনের প্রায় সব ক্ষেত্রে সফলতার স্বাক্ষর রাখা এমন পেশাদার ও চৌকস কর্মকর্তা গোলাম সাকলায়েনই মামলার তদন্ত করতে গিয়ে জড়িয়ে পড়েছেন অভিযুক্তের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে। তাও আবার ঢাকাই চলচ্চিত্রের এ সময়ের আলোচিত সমালোচিত নায়িকা পরীমনির সঙ্গে।

ঘটনার তথ্য অনুযায়ী, গত ১৩ জুন ঢাকা বোট ক্লাবে পরীমনিকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়, এমন অভিযোগ করার পর থেকে তার বিরুদ্ধেও আসতে শুরু করে একের পর এক পাল্টা অভিযোগ। এসব অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে শুরু হয় তদন্ত। যে ঘটনার তদন্ত কর্মকর্তা ছিলেন সাকলায়েন। আর এই তদন্ত করতে গিয়েই পরীমনির সঙ্গে ‘প্রেমের সম্পর্কে’ জড়িয়ে পড়েন তিনি। এ ঘটনা যেন আজ সিনেমার গল্পকেও হার মানাচ্ছে।

ঘটনা ১ আগস্টের। সময় সকাল সোয়া ৮টা। রাজারবাগ অফিসার্স কলোনির মধুমতি ভবনের সামনে এসে থামে সাদা রঙের হ্যারিয়ার গাড়ি (ঢাকা মেট্রো-ঘ ১৫ ৯৬ ৫৩)। প্রথমে নেমে এলেন লাল টি-শার্ট পরিহিত ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (এডিসি) গোলাম সাকলায়েন। এরপর নামেন হালের আলোচিত নায়িকা পরীমনি। পরনে তার সাদা স্লিপিং গাউন। কোলে ছিল বাদামি রঙের তার প্রিয় কুকুর ‘কুটু’।

পুলিশ কর্তাদের বাসভবনের নিচে নিরাপত্তায় নিয়োজিত পুলিশ সদস্যদের কাছ থেকে নিজের ফ্ল্যাটের চাবি নেন এডিসি সাকলায়েন। এর পর তারা দুজন লিফটে করে ওপরে উঠে যান। কেটে যায় দীর্ঘ সময়। রাত দেড়টায় ওই ভবনের সামনে আবার আসে পরীমনির সেই গাড়ি। পুলিশ কর্মকর্তার পরিচয় দিয়ে সেখানে ঢোকেন চালক। একপর্যায়ে গাড়ি পার্কিং করে মোবাইলে শুনছিলেন গান। দায়িত্বরত এক নিরাপত্তা সদস্যের তাতে সন্দেহ হয়। তাই পরীমনির গাড়িচালকের কাছে আবার পরিচয় জানতে চান। চালক তখন নিরাপত্তা কর্মীকে বলেন, ‘পরীমনির সঙ্গে ওই গোয়েন্দা কর্মকর্তার বিয়ে হয়েছে বলে তিনি জানেন।’ এর মধ্যে রাত সোয়া ২টার দিকে পরীমনি তার প্রিয় কুটু ও ট্রলিব্যাগসহ পুলিশ কর্মকর্তা গোলাম সাকলায়েনের সঙ্গে নেমে আসেন। সকালের সাদা পোশাকের পরিবর্তে এ সময় নায়িকার পরনে ছিল কালো রঙের পোশাক আর পুলিশ কর্মকর্তার লাল টি-শার্ট হয়ে যায় সাদা।

আলোচিত সেই কর্মকর্তা, নাসির ইউ মাহমুদের বিরুদ্ধে পরীমনির দায়ের করা মাদক মামলার তদন্তের তত্ত্বাবধায়কও (সুপারভাইজার)। তাই বিষয়টি নিয়ে পুলিশ ও গোয়েন্দা দফতরে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

পরীমনির গাড়িচালক নাজির হোসেন অবশ্য জানিয়েছেন, ওই গোয়েন্দা কর্মকর্তা-এর আগেও আলোচিত এ নায়িকাকে নিয়ে মধ্যরাতে হাতিরঝিল এলাকায় গাড়িতে ঘুরেছেন। তিনি এও শুনেছেন যে, তারা বিয়ে করেছেন।

তবে পরীমনির সঙ্গে সম্পর্কের বিষয়টি অস্বীকার করেন পুলিশ কর্মকর্তা গোলাম সাকলায়েন। গত শুক্রবার রাতে তিনি বলেন, ‘বোট ক্লাবের ঘটনায় দায়েরকৃত একটি মামলা তদন্তকালেই পরীমনির সঙ্গে আমার ব্যক্তিগত পরিচয়। ওই নায়িকা কখনই আমার বাসায় আসেননি। আর পরীমনিকে আমি বিয়েও করিনি। এটা আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার। কে বা কারা এ কাজটি করছেন তা আমি জানার চেষ্টা করছি।’

এ বিষয়ে অবশ্য কথা বলতে চাননি ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের অন্য কোনো কর্মকর্তা। একটি সূত্র অবশ্য জানিয়েছে, গোয়েন্দা পুলিশের ওই কর্মকর্তা ছাড়াও আরও কোনো কর্মকর্তার সঙ্গে পরীমনির ঘনিষ্ঠতা রয়েছে কি না, সে বিষয়ে তথ্য নিতে সরকারের উচ্চপর্যায় থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এ ঘটনায় ডিবির সব ধরনের কার্যক্রম থেকে গোলাম সাকলায়েনকে অপসারণ করার কথা নিশ্চিত করেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) ইফতেখায়রুল ইসলাম।

বুধবার (৪ আগস্ট) সন্ধ্যায় বনানীর বাসা থেকে তাকে আটক করে র‌্যাব। সে সময় তার বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ বিদেশি মদ, নতুন মাদক এলএসডি ও আইস উদ্ধার করা হয়। এরপর মাদক মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হলে এসব কথা স্বীকার করেন পরীমনি নিজেই।

সূত্রে জানা যায়, গত ১৩ জুন পরীমনির অভিযোগের প্রেক্ষিতে উত্তরার একটি বাসা থেকে গ্রেফতার করা হয় অভিযুক্ত ব্যবসায়ী নাসির ইউ মাহমুদকে। আর এই মামলার জিজ্ঞাসাবাদের কারণে গোয়েন্দা কার্যালয়ে যাতায়াত হয় পরীমনির। সেখান থেকেই গোলাম সাকলায়েন শিথিলের সঙ্গে পরিচয় হয় পরীমনির। পরিচয় থেকে শুরু হয় যোগাযোগ। তারপর থেকে পরীমনির বাসায় নিয়মিত যাতায়াত ছিল শিথিলের। গাড়ি নিয়ে একসঙ্গে ঘুরতেও বের হতেন তারা। করতেন একসঙ্গে মদপান।

গ্রেফতারের পর ডিবি কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদে পরীমনি জানান, গোলাম সাকলায়েন শিথিলের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ ছিল তার। পরে প্রেমের সম্পর্ক তৈরি হয় তাদের। শিথিল নিজেকে অবিবাহিত বলে পরিচয় দিয়েছিলেন তার কাছে। যদিও শিথিল বিবাহিত এবং এক সন্তানের বাবা। তার স্ত্রী প্রশাসন ক্যাডারের একজন কর্মকর্তা এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।

তদন্ত কর্মকর্তাদের জেরার মুখে পরীমনি জানান, সর্বশেষ গত ১ আগস্ট শিথিলের সরকারি বাসভবন রাজারবাগের মধুমতির ফ্ল্যাটে যান তিনি।

অন্যদিকে পরীমনির সহযোগী দীপু জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছেন, গত কোরবানির ঈদের পর পরীমনির বাসায় গেলে জানতে পারেন গোলাম সাকলায়েন তিন দিন পরীমনির বাসায় ছিলেন।

এদিকে গোলাম সাকলায়েনের সরকারি বাসভবনের সিসিটিভি ফুটেজ থেকে দেখা গেছে, ১ আগস্ট সকাল ৮টার দিকে পরীমনি তার মধুমতির ফ্লাটে যান। এ সময় ১০তলা থেকে নেমে এসে পরীমনিকে বাসায় নিয়ে যান সাকলায়েন নিজেই।

সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা জানান, পরীমনিকে জিজ্ঞাসাবাদের সময় গোয়েন্দা কর্মকর্তার সঙ্গে তার প্রেমের বিষয়টি উঠে এলে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা শিথিলের বাসভবনের কেয়ারটেকার শামীমকে সিসিটিভি ফুটেজসহ পুলিশ সদর দফতরে ডেকে পাঠান।

পরীমনির গাড়িচালক নাজির হোসেন বলেন, ‘ওই পুলিশ কর্মকর্তার সঙ্গে পরীমনি দুইবার রাতে হাতিরঝিলে ঘুরতে গেছেন এবং গাড়িতে বসেই দুজন মদ খেয়েছেন।’

পরবর্তীতে গোলাম সাকলায়েন শিথিল পরীমনির সঙ্গে তার সম্পর্কের বিষয় স্বীকার করে বলেন, ‘তাদের সম্পর্ক রয়েছে। তবে তা প্রেমের সম্পর্ক নয় এবং তারা বিয়েও করেননি।’

পরীমনির সহযোগী দীপু জিজ্ঞাসাবাদে ডিবি কর্মকর্তা গোলাম সাকলায়েনের সঙ্গে পরীমনির প্রেমের সম্পর্কের বিষয়টি জানতেন বলে জানিয়েছেন।

দীপু দাবি করেন, ঈদের সময় পরীমনির বাসায় গিয়ে গোলাম সাকলায়েন তিন দিন ছিলেন। পরীমনিই তাকে এ বিষয়টি জানিয়েছেন। তবে গোলাম সাকলায়েন নিজেকে অবিবাহিত বলে দাবি করেন। পরে সাকলায়েন বিবাহিত জানতে পারলে পরীমনি ক্ষুব্ধ হন। এ সময় গোলাম সাকলায়েন তার ডিভোর্স হয়ে গেছে বলে দাবি করেন।

পুলিশের সাবেক অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক মোখলেসুর রহমান বলেন, ‘কোনো মামলা-সংশ্লিষ্ট নারীকে নিজ বাসায় নিয়ে যাওয়া পুলিশের কোনো ধরনের কোড অব কন্ডাক্টের মধ্যে পড়ে না।’ এটা খুবই অশোভনীয় ও অপেশাদার কর্মকাণ্ড। এটি কোনো স্বাভাবিক ভব্যতার মধ্যে পড়ে না বলে মনে করেন সাবেক অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক মোখলেসুর রহমান।

ডিবির ঊর্ধ্বতন একজন কর্মকর্তা জানান, এ বিষয়ে গোলাম সাকলায়েনের বিরুদ্ধে এখনও কোনো বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। তবে বিষয়টি তদন্তে একটি কমিটি করা হতে পারে। কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মামলা তদন্তের খাতিরে পরীমনির সঙ্গে ডিবি কর্মকর্তার ঘনিষ্ঠ মেলামেশার বিষয়টি গণমাধ্যমে প্রকাশ হয়েছে। এ বিষয়ে পুলিশের কী ভূমিকা রয়েছে? এমন প্রশ্নের উত্তরে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘এটি অনৈতিক কাজ। যদি এটা হয়ে থাকে তাহলে তদন্ত করে তার বিরুদ্ধে পরবর্তীতে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

পরীমনিকে নিয়ে নিজ বাসায় অবস্থান করার অভিযোগে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) দায়িত্ব থেকে গুলশান বিভাগের এডিসি গোলাম মোহাম্মদ সাকলায়েনকে ডিবি থেকে সরিয়ে মিরপুরের পাবলিক অর্ডার ম্যানেজমেন্টে (পিওএম) সংযুক্ত দেয়া হয়েছে।

এর আগে গোলাম সাকলায়েনকে ডিবির সব ধরনের কার্যক্রম থেকে প্রত্যাহার করা হয় জানিয়ে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার হাফিজ আক্তার গণমাধ্যমকে বলেন, ‘যেহেতু একটা অভিযোগ উঠেছে তাই তাকে আমরা সরিয়ে নিচ্ছি। বিষয়টি এখনও তদন্তাধীন। তদন্ত প্রতিবেদন পেলে পরে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

এই ডিবি কর্মকর্তা আরও বলেন, ‘এ বিষয়ে পুলিশ সদর দফতর একটি তদন্ত করবে। তদন্তের পর তার বিরুদ্ধে ডিসিপ্লিনারি অ্যাকশন নেয়া হবে কি না, এটা পরের বিষয়।’

ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার শফিকুল ইসলাম বলেছেন, ‘পরীমনির সঙ্গে সাকলায়েনের যে অনৈতিক সম্পর্কের অভিযোগ এসেছে, তদন্ত করে সম্পৃক্ততা পাওয়া গেলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

শনিবার (৭ আগস্ট) সকালে মালিবাগের সিআইডি কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে সিআইডির অতিরিক্ত ডিআইজি মো. ওমর ফারুক বলেন, ‘ডিবি কর্মকর্তা গোলাম সাকলায়েন শিথিলের অনৈতিক সম্পর্কের বিষয়টি খতিয়ে দেখছে সিআইডি।’

স্ত্রী থাকা অবস্থায়, তার অনুমতি ছাড়া দ্বিতীয় বিয়ে করা শুধু অনৈতিকই নয়, আইনবিরুদ্ধও। অভিযোগ প্রমাণিত হলে রয়েছে আইনত শাস্তির ব্যবস্থাও।

গোয়েন্দা পুলিশের একটি সূত্র বলছে, পরীমনির সঙ্গে প্রায়ই রাতে বিভিন্ন স্থানে দেখা যেত এডিসি সাকলায়েনকে। রাত গভীর হলে গাড়ি নিয়ে ঘুরতে বের হতেন তারা। কখনও হাতিরঝিল। কখনও অন্য কোনো জায়গায়। মাঝে মধ্যে পরীমনির বাসায়ও যেতেন সাকলায়েন। সর্বশেষ পরীমনি সাকলায়েনের বাসায় গিয়ে প্রায় ১৮ ঘণ্টা সময় কাটান।

ঘুণে ধরা এই সমাজকে বদলাতে প্রশাসনের একদল দেশপ্রেমিক ও চৌকস কর্মকর্তা যখন নানা অভিযান আর উদ্যোগে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করছে, সেখানে সাকলায়েনের এমন কর্মকাণ্ডে অনেকটাই ম্লান হচ্ছে নিবেদিতপ্রাণ সেসব কর্মকর্তার অর্জন।

বুধবার (৪ আগস্ট) রাতে ১৮ লিটার মদ, নতুন মাদক এলএসডি ও আইসসহ বনানীর বাসা থেকে পরীমনিকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) তার বিরুদ্ধে দায়ের করা মাদক মামলায় চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এরকম আরও নিউজ
© All rights reserved © 2021 Aliketo Satkhira
Theme Customized By BreakingNews