1. admin@aloketosatkhira.com : admin :
  2. bablu.press14@gmail.com : aloketo satkhira bablu : aloketo satkhira bablu
  3. abdurrahman10101984@gmail.com : aloketo satkhira babu : aloketo satkhira babu
  4. hasanalibacchu2014@gmail.com : aloketo satkhira bacchu : aloketo satkhira bacchu
  5. kamrulpress@gmail.com : aloketo satkhira kamrul : aloketo satkhira kamrul
  6. leto.debhata@gmail.com : aloketo satkhira lito : aloketo satkhira lito
  7. salem8720@gmail.com : aloketo satkhira salim : aloketo satkhira salim
  8. taposhg588@gmail.com : aloketo satkhira tapos : aloketo satkhira tapos
করোনায় ৪০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ বেকারত্ব চীনে - আলোকিত সাতক্ষীরা
বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ১০:২২ অপরাহ্ন
বিশেষ:
কলারোয়ায় পরকীয়া প্রেমিকার সাথে দেখা করতে যেয়ে লাশ হলেন প্রমিক সাতক্ষীরার এক উপজেলায় তিন মাসে ৩৫ গৃহবধূ প্রেমিকের সাথে উধাও ১১ বছরে কালের চিত্র, পাঠকের নিরন্তর ভালোবাসায় সিক্ত   সাতক্ষীরায় তরুণদের জুয়ার ফাঁদে ফেলে অঢেল সম্পত্তির মালিক শাহিনুর শরীয়তপুর থেকে অপহরণ হওয়া স্কুল ছাত্রী দেবহাটা সিমান্ত থেকে উদ্ধার জুতা পায়ে স্মৃতিসৌধে বিক্ষোভের ফটোসেশন করল তালা যুবলীগ সভাপতি আশাশুনির সাবেক ওসির বিরুদ্ধে নির্বাচনে জেতাতে ২৬ লক্ষ টাকা নেয়ার অভিযোগ সাতক্ষীরায় স্ত্রীকে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে মেয়েকে ধর্ষণ পদ হারাবেন সাতক্ষীরা পৌর মেয়র তাসকিন আহমেদ! (ভিডিও) সাতক্ষীরায় অস্ত্রসহ ফরিদা খাতুন গ্রেপ্তার
সর্বশেষ:
কলারোয়া পৌরসভায় ২০২২-২৩ অর্থ বছরের উন্মুক্ত বাজেট অধিবেশন অনুষ্ঠিত নিখোঁজের ২৪ ঘন্টা পর সুন্দরবন থেকে জেলের মরদেহ উদ্ধার কলারোয়ায় পরকীয়া প্রেমিকার সাথে দেখা করতে যেয়ে লাশ হলেন প্রমিক শিক্ষক হত্যার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানালো কলারোয়া বেত্রবতী হাইস্কুল সাতক্ষীরা মেডিকেল হাসপাতালে এক রোগীর চিকিৎসার নগত টাকা দিলেন ইতালি প্রবাসী আশাশুনির শোভনালীতে বালির পরিবর্তে মাটি এবং নিন্ম মানের ইট দিয়ে সোলিং নির্মাণ  আশাশনিতে প্রেমের টানে ২দিনের ব্যবধানে পেমিক-পেমিকার আত্মহত্যা আশাশুনি থানা পুলিশের বিশেষ অভিযান  আশাশুনি নাগরিক কমিটির  সভা অনুষ্ঠিত দেবহাটার ২ কৃতি শিক্ষার্থীর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সুযোগ
বিজ্ঞাপন

করোনায় ৪০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ বেকারত্ব চীনে

  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ১১ মে, ২০২০
  • ৭৫ দেখেছেন
করোনায় ৪০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ বেকারত্ব চীনে

করোনাভাইরাসের উদ্ভূত পরিস্থিতিতে চীনে বেকারত্ব বেড়ে গত ৪০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ হয়েছে। গত কয়েক বছরে সেবাখাতে কর্মসংস্থান বাড়ায় চীনে শ্রমবাজারে স্থিতিশীলতা আসে। তবে করোনা মহামারীর কারণে বেকারত্ব বাড়ায় শ্রমবাজার অস্থিতিশীল হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

সোমবার সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট জানায়, লকডাউন তুলে নেওয়া হলেও এখনো বন্ধ রয়েছে অনেক দোকান ও রেস্তোরাঁ কেননা আগের মতো ক্রেতা নেই। অভিবাসী কর্মীরা কারখানা ফের চালু হওয়ার অপেক্ষায় রয়েছেন কিন্তু পণ্যের বৈশ্বিক চাহিদা কমতে শুরু করায় সেটি পিছিয়ে যাচ্ছে।
মধ্য ফেব্রুয়ারি থেকে অর্থনৈতিক কার্যক্রম শুরুর চেষ্টা করছে চীন। কিন্তু বেশ কয়েকটি খাত পুনরুদ্ধার করা কঠিন হয়ে পড়েছে। গত কয়েক দশকের মধ্যে প্রথমবারের মতো চীনের শ্রমবাজার বিভিন্ন দিক থেকে চাপে রয়েছে। চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে দেশটির অর্থনীতি গত ৪০ বছরের মধ্যে সর্বাধিক সঙ্কোচনের শিকার হয়েছে।

শ্রমবাজারে চলমান সংকটের কারণে বেইজিংয়ের সামাজিক উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা, চলতি দশকে মাথাপিছু দেশজ উৎপাদন (জিডিপি) দ্বিগুণ করার পরিকল্পনা এবং দারিদ্র্য দূর করার লক্ষ্য মুখ থুবড়ে পড়েছে।

গত মাসে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে সাউথওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটি অব ফিন্যান্স অ্যান্ড ইকোনমিক্সের দুই অর্থনীতিবিদ উয়াংজুন এবং কিন ফ্যাং বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের বাণিজ্যযুদ্ধের কারণে বেইজিংয়ের অর্থনীতির ওপর চাপ আরও বেড়েছে। পাশাপাশি কর্মসংস্থান পরিস্থিতির ক্রমাগত আরও অবনতি ঘটছে।’

তবে চীনের বেকারত্ব পরিস্থিতির সঠিক চিত্র নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে। সরকার কোনো স্পষ্ট তথ্য দিচ্ছে না যাতে চাকরির বাজারের অবস্থা বোঝা যায়। এছাড়া, অধিকাংশ অর্থনীতিবিদ মনে করছেন, সরকারি তথ্যে বেকারত্বের সঠিক সংখ্যা কমিয়ে দেখানো হতে পারে।

চীনে ১৪ কোটি ৯০ লাখ মানুষের নিজস্ব ব্যবসা রয়েছে এবং অভিবাসী কর্মী আছেন ১৭ কোটি ৪০ লাখ, যারা নিজেদের অঞ্চল ছেড়ে শহরে আসেন কাজ করতে। বেকারত্বের হারে এই দুই ধরনের কর্মীর সঠিক তথ্য উঠে না আসার আশঙ্কা রয়েছে।

২০১৮ সালের আগে বেইজিং একটি পরিসংখ্যান প্রকাশ করেছিল, যেখানে শহরের সেসব কর্মীর তথ্য ছিল, যারা সরকারি তালিকায় ছিলেন এবং চাকরি হারিয়েছেন। শহরে কাজ করেন কিন্তু স্থানীয় নন, এমন অভিবাসী কর্মীরা চাকরি হারানোর পরও এ পরিসংখ্যানে স্থান পাননি এবং সরকারের সামাজিক সুরক্ষা সহায়তাও তারা পাননি। তাছাড়া, বেকার হিসেবে বিবেচিত হওয়ার জন্য একজন কর্মীর বয়স ১৬ থেকে ৫৯ বছরের মধ্যে হতে হয়।

ফলে সরকারি পরিসংখ্যানে শ্রমবাজারের সঠিক চিত্র উঠে আসে না। ২০০৮-২০০৯ সালের বৈশ্বিক অর্থনৈতিক মন্দায় ২ কোটিরও বেশি অভিবাসী কর্মী চাকরি হারালেও বেকারত্বের হার হিসাবে তাদের অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি।

২০১৮ সাল থেকে প্রতি মাসে বেকারত্বের হার গণনায় জরিপ করে চীনের জাতীয় পরিসংখ্যান ব্যুরো (এনবিএস)। এ পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ডিসেম্বরে বেকারত্বের হার ছিল ৫ দশমিক ২ শতাংশ, যা ফেব্রুয়ারি মাসে হয় ৬ দশমিক ২ শতাংশ। কিছু অর্থনৈতিক কার্যক্রম ফের শুরু হওয়ায় মার্চে বেকারত্বের হার দাঁড়িয়েছিল ৫ দশমিক ৯ শতাংশ।

১ জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত শহুরে কর্মসংস্থান কমেছে মোট ৬ শতাংশ। এর মানে প্রায় ২ কোটি ৬০ লাখ চাকরি হারিয়ে গেছে।

২০১৯ সালে শহুরে কর্মসংস্থান বেড়েছিল ৮৩ লাখ। কর্মসংস্থান কমার এ হার গত চার দশকের মধ্যে সর্বোচ্চ।

এনবিএসের হিসাব অনুযায়ী, চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে প্রায় ১৮ দশমিক ৩ শতাংশ কর্মী কম বেতন বা বিনা বেতনে ছুটি নিতে বাধ্য হয়েছে।

অন্যদিকে, চীনের ১৪ কোটি ৯০ লাখ স্বনির্ভর ব্যবসায়ীর আয় কমেছে গড়ে ৭ দশমিক ৩ শতাংশ। শহর এলাকায় আয় কমার হার ১২ দশমিক ৬ শতাংশ।

চলতি বছরের শ্রমিক দিবসের ছুটিতে অভ্যন্তরীণ পর্যটন খাতে আয় গত বছরের তুলনায় কমেছে ৬০ শতাংশ। রেস্তরাঁগুলোর আয় অর্ধেক হয়ে গেছে।

অর্থনীতিবিদ ল্যারি হু বলেন, ‘চলতি বছরের শেষে বেকারত্বের হার বেড়ে ৯ দশমিক ৪ শতাংশ পর্যন্ত হতে পারে।’

২০১৯ এর শেষে চীনে শহরে চাকরি ছিল মোট ৪৪ কোটি ২০ লাখ। বেকারত্বের হার গত বছরের সমান রাখতে আরও ৮০ লাখ নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে হতো, যা এখন অসম্ভব।

আপনার মতামত দিন
বিজ্ঞাপন

শেয়ার করুণ...

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এরকম আরও নিউজ
© All rights reserved © 2020 Aloketo Satkhira
Theme Customized By BreakingNews